«

»

আগ ২৫

Print this Post

গোলামী সংগঠন ছেড়ে বিপ্লবি সংগঠন বিটিইবিএমটিএস এর পাশে থাকুন

আজ জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় যখন কারিগরি বোর্ডের অন্যান্ন পেশা নিয়ে মাননীয়

চেয়ারম্যান মহোদয়, এবং মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী, ও শিক্ষা বোর্ডের আরো আন্যান্ন কর্মকর্তাগন তাদের অমীয় মধুর বানী শোনাচ্ছিলেন আমরা আশা করেছিলাম মাননীয় চেয়ারম্যান মহোদয় আমাদের মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের নিয়ে এবং মহামান্য সুপ্রিম

কোর্টের রায় বাস্তবায়ন ও ফামের্সী এবং নার্সিং কোর্সের ব্যাপারে ও ডেন্টালের প্রাকটিস রেজিঃ কথা বলবেন কিন্ত তিনি স্বাগত বক্তব্যে মাননীয় প্রধান অথিতির দৃষ্টি আকর্ষন করে কিছু বললেননা। তিনি এই হতভাগ্য টেকনোলজিস্টদের আবারো হতাশ করলেন। প্রতারনা করলেন আমাদের সাথে, সেই সাথে শিক্ষাবোর্ডের অন্য কর্মকর্তারাও। যখন মাননীয় প্রধান অথিতি জনাম নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি, মাননীয় মন্ত্রী শিক্ষামন্ত্রনালয়, ওনি বক্তিতা করার জন্য গেলেন এবং কারিগরি শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিয়ে বার বার বলতেছে দেশরত্ন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়ন করে বিশ্বমন্ডলে ইতিহাস রচনা করবেন তখন আমরা খুশিতে আত্নহারা হচ্ছিলাম কিন্ত তাদের যে মেডিকেল টেকনোলজি আছে তারা সবাই তা বেমালুম ভুলে গেলেন তাই আমরা কিছু বলতে চাচ্ছিলাম কিন্ত বলতে পারলাম না অনেকের বাঁধার কারনে। সবার পূর্বে বোর্ডের কর্মকর্তারা ওয়াদা করেছিল আমাদের সমস্যা নিয়ে মন্ত্রী সাহেব কিছু বলবেন কিন্ত তা ছিল প্রতারণা মাত্র, কারন বোর্ডের অনেক কর্মকর্তাই সাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দালাল যে কারনে চেয়ারম্যান স্যার ঠিক থাকলেও দালালদের কারনে তিনি কিছু করতে পারেনি তিনি একা ফাঁসিতে লটকাতে যাবেন কেন? কিন্ত সমস্যা হল আমাদের কথা আমরাতো না বলে থাকতে পারিনা কারন জন্ম থেকে জলছি, রাস্তায় দাড়িয়ে যখন আমাদের দাবি নিয়ে কথা বলছি ঠিক এই দুঃসময়ে ও তারা আমাকে নানা ধরনের দেখাল, দেখলাম আমাদের কিছু মীরজাফরদেরকে যারা আমাদের মূল সংগঠনকে যারা নিজেরা নেতা হতে চেয়েছিল তারা বলে আমরাই সব করছি আর কেহ কাজ করেনা এবং তাদের সমর্থনকারী মীরজাফরদের তারা খুশিতে আত্নহারা যেন আমরা সব পেয়েগেছি। এই দৃশ্যপট দেখে ডালিম ভাইয়ের পাশে আসন গ্রহন করা মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের একান্ত সচিব জনাব জাকির ভাই ডালিম ভাই ও আমাকে বারং বার থামতে বলতেছেন, আমি কিছুতেই থামতে পারছিলাম না যেখানে সকল টেকনোলজি নিয়ে কথা বলছেন সুধু আমাদের ব্যতিরেখে। তারা বলছে শোকসভা এখানে অন্যকোন কথা বলা যাবেনা কিন্ত তারাতো সব বিষয়েই কথা বলছিলেন আমি সাধারন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট তাই সাধারন মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের কথা বুজি কিন্ত রাজনীতি বুজিনা কিন্ত এ টুকু বুজলাম নিজের সব বলা যাবে একলক্ষ মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের মরে যাক সে কথা বলা যাবেনা কিন্ত অন্যেকে অনেক কিছু বলা যাবে একেই বলে রাজনীতি, তখন… বুঝাতে পারলাম। আমি আজ বুজতে পারলাম প্রকৃত অর্থে আমাদের কোন কোন অভিবাবক নেই। আমাদের দাবি আমাদেরই আদায় করে নিতে হবে, যারা আমাদের শিক্ষা দিয়েছেন তাদের আগে ধরতে হবে তারপর অন্যদের। ঈদের পর মানব বন্দন,সেমিনার, মহাসম্মেলন করে আমাদের সমস্যা গুলো দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা কে জানাতে হবে। বিটিইবি হতে পাশকৃত এবং অধ্যায়নরত ভাই বোনদের উদ্দেশ্য করে বলছি আজ থেকে মনে প্রানে সভা, সেমিনার, মানব বন্দন করার জন্য প্রস্তুত থাকুন যখনই কেন্দ্র থেকে ডাক আসবে অতীতের ন্যায় সারা বাংলাদেশে একদিনে সকল কর্মসূচি পালন করব ইনসা আল্লাহ। আপনারা আপনাদের নিজেদের জন্য সংগঠনে আসুন, আমাদেরকে আরো শক্তিশালী করুন আমরা কথা দিলাম আমাদের প্রানের সংগঠন বিটিইবিএমটিস মাধ্যমেই আমাদের সমস্যা দুর করতে পারবে অন্য কেউ না পারবে না। আমাদের পাশে এসে দাড়ান। ইনশাআল্লাহ এই অসাধ্য কাজ আমরা সাধন করব। আজ অনেক সংগঠন আর অনেক নেতাকেই দেখেছি কেউ একটা কথা বলেনি। শুধুই কি এই দাবি আদায়ের কাজ বিটিইএমটিস এর জন্য ছিল। আমরাই কি বারংবার রাস্তায় নামব জেল খাটব!……। আজ ও ফরহাদের মামলা শেষ করতে পারি নাই অনেকই বলেছিল মামলার সমাধান করে দিবে বাস্তবতা ভিন্ন সবই রাজ………নীতির খেলা। প্রকৃত পক্ষে অনেকে আমাদের দাবিয়ে রাখতে চাচ্ছে তাই আজ অবদি মামলাটি নিস্পত্তি হচ্ছেনা। হুঁশিয়ার করে বলে দিতে চাই আমাদের কে নিয়ে কোন ধরনের জগন্য খেলা খেলতে আসবেন না, চিরজীবন মীরজাফররা পিছনেই ক্ষতি করতে পারে সামনে আসতে পারেনা ওদের কাজ হল গোলামী করা কাউকে আজাদ করা নয়, অনেক কলেজ মালিক আমাদের দাবিকে ও সংগঠনকে ধূলিসাৎ করতে আমাকে সন্ত্রাসি পরে ছাত্র শিবির বলেছে এখন বাকি আছে রাজাকার ও বাকশাল বলা, হয়ত এটাও কিছু দিনের মধ্যেই তারা ও তাদের পাচাটা গোলামরা বলবে। নিজের টাকা খরচ করে লেখা পড়া করে নিজেদের দাবি আদায় করার জন্যই এ কথা গুলো শুনতে হল জদিও কাজটি কলেজ মালিক বোর্ডের ছিল, নিমক হারাম জাতিকে উপকার করলেও সে নিমক হারমি করবেই। ওদের কাজ হল রস লাগিয়ে মিথ্যা কথা বলা আর মিথ্যা নিয়ে বেঁচে থাকা তার পর ও একদিন সত্য প্রকাশ হবে তখন এই পাচাটা গোলামদের সাধারন মেডিকেল টেকনোলজিস্টরাই বিচার করবে,ইনসা আল্লাহ। যে যাই বলুক আমাদের ন্যায্য দাবি,আদায় করে ছাড়ব ইনসা আল্লাহ।

মোঃ বেলাল হোসেন,

সাধারন সম্পাদক,

বিটিইবিএমটিএস, কেন্দ্রীয় সংসদ।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Permanent link to this article: http://btebmts.com/%e0%a6%97%e0%a7%87%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a7%80-%e0%a6%b8%e0%a6%82%e0%a6%97%e0%a6%a0%e0%a6%a8-%e0%a6%9b%e0%a7%87%e0%a7%9c%e0%a7%87-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b2/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

Translate »
Return to Top ▲Return to Top ▲